স্কিন সল্যুশন

সম্পূর্ণ ঘরোয়া পদ্ধতিতে ব্রণের দাগ দূর করার উপায়

সম্পূর্ণ ঘরোয়া পদ্ধতিতে ব্রণের দাগ দূর করার উপায়

ব্রণের দাগ দূর করার উপায় অনেকগুলোই রয়েছে। সর্বোত্তম উপায় হচ্ছে ঘরোয়া ও প্রাকৃতিক উপায়ে ব্রণের দাগ দূর করুন কিংবা চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ঔষধ ব্যবহার করুন। ব্রণের দাগ দূর করার জন্য আজ বাহারি রকমের কসমেটিকস থাকলেও সেগুলোর বেশীরভাগই ক্ষতিকারক।

ব্রণ হলে ব্রণ দূর করতে অনেক সময় লেগে যায়। অনেক সময় দেখা যায় ব্রণ দূর করার উপায় গুলো জানতেই অনেক সময় লেগে যায়। এগুলো জানার পরে ব্রণ দূর করতে পারলেও ব্রণের দাগ থেকে যায়। যা অনেকটা বিরক্তিকরও বটে।

ব্রণের দাগ দূর করার জন্য আমরা আজকে এমন কিছু উপায়গুলো নিয়ে আলোচনা করবো যে উপায়গুলো সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক ও ঘরোয়া পদ্ধতিতে করতে পারবেন। তাই নিশ্চিত থাকুন যে এগুলো আপনার কোন ক্ষতি করবে না।

ব্রণের দাগ দূর করার উপায়

অনেক ধরনের প্রাকৃতিক পুষ্টিগুণ সম্পন্ন উপাদান রয়েছে। যে উপাদানগুলো ব্যবহারের মাধ্যমে ত্বকের সৌন্দর্য্য বজায় রাখা সম্ভব। সেই সাথে মুখমণ্ডলে থাকা বিভিন্ন ধরনের দাগও মুছতে সক্ষম। চলুন তেমনই কিছু উপাদান সম্পর্কে জেনে আসি।

১. লেবু

মুখমণ্ডলের দাগ ও তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে লেবু দারুণ কাজ করে। কারণ, লেবুতে রয়েছে ব্লিচ উপাদান। লেবু ব্যবহার করার জন্য প্রথমে একটি লেবু নিয়ে সেই লেবুর রস বের করে নিতে হবে। চাইলে লেবুর রসে সামান্য গোলাপজল বা পানি দেওয়া যেতে হবে।

তারপর উক্ত লেবুর রসে তুলো ভিজিয়ে সেই তুলো ব্রণের দাগের উপর ২০ মিনিট লাগিয়ে রাখতে হবে। চাইলে লেবুর রস সরাসরি ব্যবহার করাও যায়। লেবুর রস দিয়ে মুখমণ্ডল ভালোভাবে ধুয়ে অন্তত ৩০ মিনিট রাখতে হবে। চাইলে বেশী সময়ও রাখতে পারেন। তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

২. শসা ও টমেটোর রস

ত্বকের যত্নে শসা অনেক কার্যকারি একটি উপাদান। সেই সাথে টমেটোও ত্বকের যত্নে বহুল ব্যবহৃত একটি উপাদান। প্রথমে অল্প পরিমাণ শসা ও একটি টমেটো ব্লেন্ডারে নিয়ে পেস্ট করে নিতে হবে। পেস্ট করা হয়ে গেলে উক্ত পেস্ট মুখে লাগিয়ে রাখতে হবে। মুখে লাগানো পরে শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

ব্রণের দাগ দূর করার পাশাপাশি রোদে পোড়া ত্বক এর যত্ন নিতেও এই উপাদানটি দারুন কাজ করে। এই উপাদানটি ব্যবহারে মুখ থাকে শীতল ও রোদে পোড়া দাগ মুখমণ্ডল হতে মুছে ফেলে।

৩. ব্রণের দাগ দূর করার উপায় অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করুন

ত্বকের সৌন্দর্য্য বজায় রাখতে অ্যালোভেরা জেল অনেক পুরোনো একটি উপাদান। ব্রণের অত্যন্ত গভীর দাগও অ্যালোভেরা জেল দিয়ে দূর করা সম্ভব। অ্যালোভেরা জেল ব্যবহারের জন্য প্রথমে অ্যালোভেরা পাতা হতে অ্যালোভেরা বের করে দিনের যে কোন অংশে মুখমণ্ডলে ২০ মিনিটের জন্য লাগিয়ে রাখতে হবে। তারপর ধুয়ে ফেলতে হবে।

৪. বেকিং সোডা

লেবুর পাশাপাশি বেকিং সোডাতেও রয়েছে ব্লিচিং উপাদান, যা ব্রণের দাগ দূর করে থাকে। প্রথমে ২ চামচ বেকিং সোডা নিয়ে তাতে ২ চামচ পানি দিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। সেই মিশ্রণকে ব্রণের দাগের স্থানে ভালোভাবে লাগিয়ে দিন। ২/৩ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দু’বার এভাবে করলে ব্রণের দাগ দ্রুত দূর হবে।

৫. ব্রণের দাগ দূর করার উপায় তুলসি পাতার রস ব্যবহার করুন

তুলসি পাতার রস ও তুলসী পাতায় বিভিন্ন আয়ুর্বেদিক গুণ রয়েছে। যে গুণের সাহায্য অনেক কঠিন রোগও সহজে নিরাময় করা যায়। তুলসি পাতার সাহায্য ব্রণের দাগ দূর করার জন্য ৮/১০ টি তুলসি পাতা নিয়ে তা হতে রস বের করে ব্রণের দাগযুক্ত স্থানে ভালোভাবে লাগাতে হবে। এভাবে সপ্তাহে তিনদিন করলে কিছুদিনের মধ্যে ব্রণের দাগ দূর হতে শুরু করবে।

শেষ কথা

আপনারা এতক্ষণ ব্রণের দাগ দূর করার উপায় গুলো যতগুলো জানলেন সবগুলোই প্রাকৃতিক ও ঘরোয়া ‍উপায়। তাই নিশ্চিন্তে ব্রণের দাগ দূর করার জন্য এই উপায়গুলো ব্যবহার করুন। ব্রণের দাগ যদি খুব গভীর হয়ে থাকে তাহলে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে দাগ দূর করতে হবে। নয়তো এই উপায়গুলো ব্যবহার করেই ব্রণের দাগ দূর করা সম্ভব।

এই বিভাগ থেকে আরো পড়ুন

কতদিন পর বুঝা যায় যে আপনি প্রেগন্যান্ট কি না?

মো. মাহাবুব আলম

জন্মের পর শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোর নিয়ম

মো. মাহাবুব আলম

গর্ভবতী হওয়ার কতদিন পর বমি হয়

মো. মাহাবুব আলম

পিল খেলে আপনার কি কি সমস্যাগুলো হতে পারে?

মো. মাহাবুব আলম

প্রাকৃতিক ও ঘরোয়া উপায়ে তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন

মো. মাহাবুব আলম
লেখাপড়া