বরিশাল কামান বলতে ঊনবিংশ শতাব্দীতে বরিশালের বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে ঘটা বিকট কিছু শব্দকে বোঝায় । যা অনেকটা কামান ফাটানোর শব্দ বলে মনে হত। স্থানীয়রা এই শব্দকে ‘বরিশাল কামান’ বলে ডাকতে থাকে। গভীর রাতে কখনো কখনো একটা শব্দ শোনা যেত, আবার কখনো দুই বা তিনটি শব্দ একসাথে শোনা যেত।

ইংরেজদের প্রাথমিক ধারণা ছিল, হয়তো ডাচ কিংবা পর্তুগিজ জলদস্যুরাই বরিশালে কোনো গোপন ঘাঁটি করে, ভয় দেখানোর জন্য এ আওয়াজ করছে। এরপর ধারণা করা হয়, সাগর তীরে টেকনোটিক প্লেটের নড়াচড়ার কারণে শব্দটা হয়েছে। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে এ ধরণের শব্দগুলোকে একত্রে ‘মিস্টপুফার্স’ বা ‘স্কাই কোয়াক’ বলা হয়।

বরিশালের মতো ভারতের গঙ্গা নদীর তীরে এবং যুক্তরাষ্ট্র, বেলজিয়াম, স্কটল্যান্ড, ইতালি, নেদারল্যান্ডস, জাপান, ফিলিপাইন, অস্ট্রেলিয়া, উত্তর সাগরসহ আরও কিছু এলাকায় এ ধরনের শব্দ শোনা গিয়েছে বলে নথিবদ্ধ রয়েছে। তবে সর্বশেষ আলোকপাতে এটিই বলতে হয় যে, বরিশাল কামানের শব্দের উৎপত্তির রহস্য জানতে অনেক চেষ্টা করা হলেও এর কার্যকরি কোনো সমাধান পাওয়া যায়নি।